SEBA Class-10 Bangla Question Answer| বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম | অসমের নেপালী গোর্খা জনগোষ্ঠী

SEBA Class-10 Bangla Question Answer| বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম | তিওয়া প্রতিটি অধ্যায়ের উত্তর তালিকায় প্রদান করা হয়েছে যাতে আপনি সহজেই বিভিন্ন অধ্যায় জুড়ে ব্রাউজ করতে পারেন এবং আপনার প্রয়োজন SEBA Class-10 Bangla Question Answer| বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম | অসমের নেপালী গোর্খা জনগোষ্ঠী এমন একটি নির্বাচন করতে পারেন।

SEBA CLASS 10 (Ass. MEDIUM)

  1. English Solutions
  2. অসমীয়া Questions Answer
  3. বাংলা Questions Answer
  4. বিজ্ঞান Questions Answer
  5. সমাজ বিজ্ঞান Questions Answer
  6. हिंदी ( Elective ) Questions Answer
  7. ভূগোল (Elective) Questions Answer
  8. বুৰঞ্জী (Elective) Questions Answer
  9. Hindi (MIL) Question Answer

SEBA Class-10 Bangla Question Answer| বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম | অসমের নেপালী গোর্খা জনগোষ্ঠী

Also, you can read the SCERT book online in these sections Solutions by Expert Teachers as per SCERT (CBSE) Book guidelines. These solutions are part of SCERT All Subject Solutions From above Links . Here we have given SEBA Class-10 Bangla Question Answer|  Solutions for All Subjects, You can practice these here.

অসম নেপালী সাহিত্য সভা 

প্রশ্ন ১। নেপালী বা গোর্খা জনগোষ্ঠী লোকগণ কি কি নৃ-গোষ্ঠীয় লোকের সংমিশ্রণ ? 

উত্তর : নেপালী বা গোর্খা জনগোষ্ঠী লোক আর্য, মঙ্গোল এবং কিরাত গোষ্ঠীয় লোকের সংমিশ্রণ। 

প্রশ্ন ২। ‘লাল মোহরীয়া পান্ডা’ বলিতে কী বুজায় ? 

উত্তর : কামাখ্যা মন্দিরের নির্মাতা ও প্রাগজ্যোতিষপুরের রাজা নরকাসুর কামাখ্যা মন্দিরে পূজা করিবার জন্য নেপাল হইতে পূজারী আনিয়াছিলেন পরে তাঁহারা মন্দিরে ‘লাল মোহৱীয়া পান্ডা’ হিসাবে পরিচিতি লাভ করেন। 

প্রশ্ন ৩। অসম প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির প্রথম সভাপতির নাম লেখো? 

উত্তর : ছবিলাল উপাধ্যায়। 

প্রশ্ন ৪। ট্ৰাইবেল বেল্ট ব্লকে নেপালী ভাষী লোকসকল কখন সংরক্ষিত শ্রেণীর | মর্যাদা পাইয়াছিল ? 

উত্তর : গোপীনাথ বরদলৈর মুখ্যমন্ত্রীত্বের সময় ১৯৪৭ সালে গঠিত ট্রাইবেল বেল্ট। এন্ড ব্লকে নেপালীগণ সংরক্ষিত শ্রেণীর মর্যাদা পাইয়াছিল। 

প্রশ্ন ৫। রতিকান্ত উপাধ্যায় কে ছিলেন? তিনি কোথায় কোথায় সত্ৰ স্থাপন করিয়াছিলেন ? 

উত্তর : রতিকান্ত উপাধ্যায় একজন নেপালী ব্রাহ্মণ তিনি শ্রীমন্ত শংকরদেবের শিষ্য ছিলেন। তিনি টিয়ক এবং নগাঁওতে সত্র স্থাপন করিয়াছিলেন। 

প্রশ্ন ৬। গোর্খা সম্প্রদায়ের লোকজনের পালন করা মুখ্য উৎসবগুলি কি কি? 

উত্তর : ‘তীজ’, ‘বড়া দশৈ’ এবং ‘তিহার’ গোর্খাদের মুখ্য উৎসব। 

প্রশ্ন ৭। ‘জম্মুখীপে, আর্যাবর্তে, ভারতবর্ষে, অসম প্রান্তে’- কথার তাৎপর্য কী? 

উত্তর : প্রায় পাঁচ হাজার বছর পূর্ব হইতেই অসমের সহিত নেপালের পারস্পরিক সম্পর্ক ছিল। তখন এই সমগ্র অঞ্চল জম্বুদ্বীপ বা আর্যাবর্ত নামে পরিচিত ছিল। নেপালী ভাবী লোক বাৎসরিক পিতৃশ্রাদ্ধে পিও দান করার সময় মথের সহিত নিজের ঠিকনা উল্লেখ করিয়া স্থানের নামগুলি উচ্চারণ করিতেন। সম্বোধনে সপ্তমী বিভক্তির ব্যবহার করায় জম্বুদ্বীপে, আর্যাবর্তে, ভারতবর্ষে, অসম প্রান্তে উল্লেখ করা হইয়াছে। 

প্রশ্ন ৮। সুগৌলী সন্ধি কখন হইয়াছিল? এই সন্ধিমতে কোন দেশের ভূ-ভাগ এবং জনসমষ্টি ভারতের অন্তর্ভূক্ত হইয়াছিল ?

উত্তর : ১৮১৫-১৬ সালে ব্রিটিশ এবং নেপালের মধ্যে সুগৌলী সন্ধি হইয়াছিল। এই সন্ধি মতে নেপালের অনেক ভূ-ভাগ এবং নেপালী জনসমষ্টি ভারতের অন্তর্ভুক্ত হইয়াছিল। 

প্রশ্ন ৯। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে ছবিলাল উপাধ্যায়ের অবদান উল্লেখ করো। 

উত্তর : ১৮৮২ সালের ১২ মে বুটীগাও গ্রামে জন্ম হয় ছবিলাল উপাধ্যায়ের। তিনি স্বাধীনতা সংগ্রামী ছিলেন। তিনি অসম প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির প্রথম সভাপতি। কংগ্রেসে যোগদান করিবার জন্য তাঁহাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ব্রিটিশের পক্ষ হইতে তাহাকে স্বাধীনতা সংগ্রামে জড়িত না হইবার জন্য লোভনী। পদের প্রস্তাব দেওয়া হইলেও তিনি তাহা প্রত্যাখ্যান করেন। গান্ধীর নেতৃত্বে অসহযোগ আন্দোলনে ঝাপাইয়া পড়িয়া ছয়মাস কারাবাস ঘাটিয়াছিলেন। বিদেশী বস্তু বর্জন কার্যসূচীতে অংশগ্রহণ করিয়া নিজগৃহের বিদেশী জিনিস জ্বালাইয়া দিয়াছিলেন। অসমকে ‘সি’ গ্রুপের অন্তর্ভূক্ত করা চক্রান্তের তিনি তীব্র বিরোধিতা করেন। তাহার নেতৃত্বে অখিল ভারতীয় গোর্খা লিগের আহ্বানে তেজপুরে ৩০ হাজার নেপালীকে সমবেত করিয়া জিন্নার এই প্রস্তাবের প্রতিবাদ করেন। 

প্রশ্ন ১০। হরিপ্রসাদ গোর্খা রাই-য়ের সাহিত্যিক অবদানের বিষয়ে আলোচনা করো। 

উত্তর : ধনরাজ রাই ও যশোদা রাই-র সন্তান হরিপ্রসাদ গোর্খা বাই ১৯১৫ সনের ১৫ মার্চ কোহিমাতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নিজেকে হরিপ্রসাদ গোর্খা রাই হিসাবে পরিচয় দিয়াছিলেন। অসম সাহিত্য সভার প্রথম সভাপতি পদ্মনাথ গোহাঞি বরুয়ার সান্নিধ্যে আসিয়া সাহিত জগতে পদার্পণ করেন। ১৯৩৫ সালে অসমীয়া ভাষায় রাজনৈতিক প্রবন্ধ লিখিয়াছিলেন। তাহার রচিত অসমীয়া এবং নেপালী ভাষায় রচিত গল্পগুলিতে জনজাতীয় এবং অজনজাতীয় জীবনের সম্প্রীতির চিত্র ফুটিয়া উঠিয়াছে। পরাধীন ভারতে জাতীয় চেতনা এবং জাগরনের জন্য সাহিত্য চর্চাকে মাধ্যম হিসাবে গ্রহণ করেন। তিনি বিভিন্ন জনজাতীয় ভাষায় শব্দকোষ এবং নেপালী ভাষায় কবিতা সংকলন ও গল্প সংকলন রচনা করিয়াছেন। 

প্রশ্ন ১১। দলবীর সিং লোহারের পরিচয় দাও এবং ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে তিনি কীভাবে জড়িত ছিলেন ব্যাখ্যা করো? 

উত্তর : অন্তরাম লোহারের পুত্র দলবীর সিং লোহারের জন্ম ১৯১৫ সনের ২৬ জানুয়ারি ডিক্লগড়ের খলিহামারীতে। তিনি ১০ বছর বয়সে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীতে যোগদান করেন এবং ১৯৩০ সালে করাচীতে অখিল ভারতীয় কংগ্রেস কমিটির সভায় অসমের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলবীর সিং লোহার অসমের নেপালীভাষী প্রথম বিধায়ক। 

লোহার কানিংহাম সার্কুলারের বিরোধিতা করিয়া কারাবাস বরণ করেন। ব্রিটিশের গণবিরোধী নীতির বিরোধিতা করায় তাহাকে পুনরায় ছয়মাস কারাবাস বরণ করিতে হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ভারতকে জড়িত করা কার্যের ও বিরোধিতা করেন।

Chapter
NO.
Contents
সাগর সঙ্গমে নবকুমার
বাংলার নবযুগ
বলাই
অরুণিমা সিন্হা : আত্মবিশ্বাস
ও সাহসের অন্য এক নাম
তোতা কাহিনী
কম্পিউটার কথা, ইন্টারনেট কথকতা
আদরিণী
প্রার্থনা
প্রতিনিধি
১০গ্রাম্যছবি
১১ বিজয়া দশমী
১২ আবার আসিব ফিরে
১৩দ্রুতপঠন : বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম
তিওয়া
দেউরী জনগোষ্ঠী
অসমের নেপালী গোর্খা জনগোষ্ঠী
বড়ো জনগোষ্ঠী
মটক জনগোষ্ঠী
মরাণ জনগোষ্ঠী
মিচিং জনগোষ্ঠী
অসমের মণিপুরী জনগোষ্ঠী
রাভাসকল
সোনোয়াল কছারিসকল
হাজংসকল
অসমের নাথযোগীগণ
আদিবাসীসকল
১৪পিতা ও পুত্র
১৫অরণ্য প্রেমিক : লবটুলিয়ার কাহিনী
১৬ জীবন-সংগীত
১৭কাণ্ডারী হুশিয়ার

ভাবসম্প্রসারণ

রচনা

রচনা (Part-2)

Leave a Reply