SEBA Class-10 Bangla Question Answer| Chapter-2| বাংলার নবযুগ

SEBA Class-10 Bangla Question Answer| Chapter-2| বাংলার নবযুগ প্রতিটি অধ্যায়ের উত্তর তালিকায় প্রদান করা হয়েছে যাতে আপনি সহজেই বিভিন্ন অধ্যায় জুড়ে ব্রাউজ করতে পারেন এবং আপনার প্রয়োজন SEBA Class-10 Bangla Question Answer| Chapter-2| বাংলার নবযুগ এমন একটি নির্বাচন করতে পারেন।

SEBA CLASS 10 (Ass. MEDIUM)

  1. English Solutions
  2. অসমীয়া Questions Answer
  3. বাংলা Questions Answer
  4. বিজ্ঞান Questions Answer
  5. সমাজ বিজ্ঞান Questions Answer
  6. हिंदी ( Elective ) Questions Answer
  7. ভূগোল (Elective) Questions Answer
  8. বুৰঞ্জী (Elective) Questions Answer
  9. Hindi (MIL) Question Answer

SEBA Class-10 Bangla Question Answer| Chapter-2| বাংলার নবযুগ

Also, you can read the SCERT book online in these sections Solutions by Expert Teachers as per SCERT (CBSE) Book guidelines. These solutions are part of SCERT All Subject Solutions From above Links . Here we have given SEBA Class-10 Bangla Question Answer| Chapter-2| বাংলার নবযুগ Solutions for All Subjects, You can practice these here.

পাঠ-২  খ

লেখক পরিচিতি

বিপিনচন্দ্র পাল (১৮৫৮-১৯৩২)ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা বিশিষ্ট বাগ্মী বিপিনচন্দ্র পালের জন্ম শ্রীহট্ট জেলায় ১৮৫৮ সালের ৭ নভেম্বর। জাতীয় কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশনেই (১৮৮৫) তিনি যোগদান করেন। ১৯০১ খ্রি. ‘নিউ ইন্ডিয়া’ নামে সাপ্তাহিক ইংরাজি পত্রিকা প্রকাশ করেন। ১৯০৬ খ্রি. তাঁহারই সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় ইংরাজি দৈনিক ‘বন্দেমাতরম্’। বঙ্গভঙ্গ (১৯০৫) আন্দোলনের সময় তাঁহার অসাধারণ বাগ্মিতা তাঁহাকে জাতীয় নেতার মর্যাদায় উন্নীত করে। ১৯২১ সালে অসহযোগ আন্দোলনে মতভেদের জন্য যোগ না-দেওয়ায় তাঁহার রাজনৈতিক জীবনের অকস্মাৎ পরিসমাপ্তি ঘটে। শেষ জীবন আর্থিক অনাটনে অতিবাহিত হয়। বিপিনচন্দ্র পাল প্রকৃত অর্থে একজন ইতিহাস পুরুষ। তাঁহার বাগ্মিতা, রাজনীতি, সাহিত্যচর্চা সবই পরবর্তী প্রজন্মকে প্রভাবিত করে। ১৯৩২ সালে এই বিপ্লবীর দেহাবসান ঘটে।

প্রশ্নাবলী 

(ক) অতি সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও : 

প্রশ্ন ১। ছাত্র আন্দোলন কোন শহরে গড়ে উঠেছিল? 

উত্তর : ছাত্র আন্দোলন বোম্বাই শহরে গড়িয়া উঠিয়াছিল।

প্রশ্ন ২। দাক্ষিণাত্যে আধুনিক রাষ্ট্র জীবনের প্রতিষ্ঠাতা কে? 

উত্তর : দাক্ষিণাত্যে আধুনিক রাষ্ট্র জীবনের প্রতিষ্ঠাতা দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজ। 

প্রশ্ন ৩। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রতিষ্ঠাতা কে? 

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রতিষ্ঠাতা আনন্দমোহন।

প্রশ্ন ৪। কোথায় প্রথম সুরেন্দ্রনাথের বাগ্মী প্রতিভার প্রকাশ ঘটে?

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর রঙ্গমঞ্চে অর্থাৎ হিন্দু স্কুলের গ্যালারিতে প্রথম সুরেন্দ্রনাথের বাগ্মী প্রতিভার প্রকাশ ঘটে।

প্রশ্ন ৫। দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজ থেকে যাঁরা দেশসেবাব্রতে দীক্ষা লাভ করেন, তাদের মধ্যে দুজন ভারত-প্রসিদ্ধ লোকনায়কের নাম উল্লেখ করো। 

উত্তর : লোকমান্য তিলক, গোপালকৃষ্ণ গোখলে। 

(খ) সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও : 

প্রশ্ন ১। শিখ ইতিহাসের গৌরব দুজন মহান শিখ ব্যক্তির নাম উল্লেখ করো। 

উত্তর : দুইজন মহান শিখ ব্যক্তির নাম হইল তেগ বাহাদুর এবং শুরু গোবিন্দ।

প্রশ্ন ২। আনন্দমোহন বোম্বাই শহরে কী দেখে আসেন? 

উত্তর : আনন্দমোহন বোম্বাই শহরের শিক্ষিত এবং শিক্ষার্থীরা মিলিত হইয়া কীভাবে দেশে একটা নতুন শক্তি জাগাইবার চেষ্টা করিতেছিল তাহা দেখিয়া আসেন।

প্রশ্ন ৩। বোম্বাইয়ের ছাত্র আন্দোলন কী নামে পরিচিত ছিল? তার উদ্দেশ্য কী ছিল ?

 উত্তর : বোম্বাইয়ের ছাত্র আন্দোলন Student Movement নামে পরিচিত ছিল। তাহার উদ্দেশ্য ছিল। দেশে একটা নতুন শক্তি জাগাইয়া তোলা। 

প্রশ্ন ৪। দাক্ষিণাত্য শিক্ষক সমাজের জন্ম কীভাবে হয়েছিল? 

উত্তর : বোম্বাইয়ের ছাত্র আন্দোলনের প্রভাবে দাক্ষিণাত্যে ছাত্র আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটিয়াছিল। দাক্ষিণাত্যের যুবনেতারা বোম্বাইয়ের নেতাদের সঙ্গে পরোক্ষভাবে সংশ্লিষ্ট ছিলেন। 

প্রশ্ন ৫। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর সভাপতি ও সম্পাদক কে ছিলেন? 

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর সভাপতি ছিলেন আনন্দমোহন বসু এবং সম্পাদক ছিলেন নন্দকৃষ্ণ বসু মহাশয়।

প্রশ্ন ৬। কলিকতা ছাত্রমণ্ডলী ইংরেজিতে কোন্ নামে পরিচিত? [HSLC 2021 (spL)) 

উত্তর : Students Association নামে পরিচিত। 

প্রশ্ন ৭। সুরেন্দ্রনাথের বক্তৃতার বিষয় কী ছিল? তিনি কোথায় প্রথম বক্তৃতা করেছিলেন?

উত্তর : সুরেন্দ্রনাথের বক্তৃতার বিষয় ছিল Rise of the Shikh Power in India) তিনি হিন্দু স্কুলের গ্যালারিতে প্রথম এই বক্তৃতা দিয়াছিলেন।

(গ) দীর্ঘ উত্তর লেখো :

প্রশ্ন ১। বাংলায় নবযুগ প্রবর্তনে সুরেন্দ্রনাথের ভূমিকা বর্ণনা করো।

উত্তর : বাংলায় নবযুগ প্রবর্তনে সুরেন্দ্রনাথের অসাধারণ ভূমিকা ছিল। তিনি সর্বপ্রথম বাংলার বুকে শিখদের বীরগাথা প্রচার করিয়াছিলেন। ইতিপূর্বে স্বদেশী ভাবনা বিস্তার করিবার জন্য দেশে একটা ইংরাজবিরোধী উদ্দীপনা সঞ্চার করিবার জন্য রাষ্ট্রনেতারা ভারতের প্রাচীন ইতিহাস ও পুরাকাহিনির দৃষ্টান্ত অবলম্বন করিতেন। তাহাতে শত্রুর পরাজয়- গাথা মানুষের মনে উদ্দীপনা ও সাহসের সঞ্চার করিত। কিন্তু সুরেন্দ্রনাথই প্রথম দেশবাসীর কাছে শিখ বীরত্বের জীবন্ত গাথা প্রচার করিয়া দেশবাসীকে স্বাধীনতা যুদ্ধে উদ্দীপিত করিয়া তুলিতে সচেষ্ট হইয়াছিলেন। ইতিপূর্বে বাঙালিরা শিখ জাতির আত্মবলিদানের কথা তেমন জানিত না। রাজা রঞ্জিত সিংহের নাম জানিলেও টেগ বাহাদুর এবং তাহার বাণী শিব দিয়া শীর নেহি দিয়া অর্থাৎ মাথা দিলাম বটে কিন্তু ধর্ম দিলাম না ইত্যাদি কিছুই জানিত না। সুরেন্দ্রনাথ শিখ ইতিহাসের এই প্রাণ-উন্মাদিনী বক্তৃতা দিয়া বাংলার অন্তঃপুর পর্যন্ত আলোড়িত করিতে সক্ষম হইয়াছিলেন। পৌরাণিক ভারতীয় কীর্তি কাহিনি ছাড়াও ইদানীং কালের ভারতে যে শৌর্য-বীর্যের প্রতিষ্ঠা হইয়াছিল তাহারই বাস্তব ইতিহাস বাংলার লোকসমাজে সুরেন্দ্রনাথ তুলিয়া ধরিলেন। এবং বাংলার মানুষকে নবযুগের আন্দোলনে সামিল হইবার জন্য উদ্দীপিত করিয়াছিলেন।

প্রশ্ন ২। দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজের পরিচয় দাও।

উত্তর : বোম্বাইয়ের ছাত্র আন্দোলনের প্রভাবে দাক্ষিণাত্যে শিক্ষা সমাজের জন্ম হয়। এই সমাজই দাক্ষিণাত্যে আধুনিক রাষ্ট্রীয় জীবনের প্রতিষ্ঠা করেন। লোকমান্য তিলক, গোপালকৃষ্ণ গোখলে প্রভৃতি ভারত প্রসিদ্ধ লোক নায়কেরা এই শিক্ষা সমাজ হইতে দেশসেবার ব্রতে দীক্ষিত হন। দাক্ষিণাত্যের যুবনেতারা বোম্বাইয়ের নেতাদের সহিত পরোক্ষভাবে সংশ্লিষ্ট ছিলেন। বিলাত হইতে ফিরিয়া আনন্দ মোহন বোম্বাইয়ের ছাত্রমণ্ডলীর সহিত পরিচিত হইয়া কলিকাতায় কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রতিষ্ঠা করিয়া নতুন রাষ্ট্রকর্ম গড়িয়া তুলেন। 

প্রশ্ন ৩। নন্দকৃষ্ণ বসু সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর সম্পাদক ছিলেন নন্দকৃষ্ণ বসু। কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উজ্জ্বলতম রত্ন। প্রবেশিকা পরীক্ষা হইতে এম. এ পর্যন্ত প্রত্যেক পরীক্ষায় সর্বোচ্চ স্থান অধিকার করিয়াছিলেন। প্রেমচাদ রায়চাদ বৃত্তি লাভ করেন। 

প্রশ্ন ৪। বাংলা জাতীয় চেতনার বিকাশে আনন্দমোহন বসুর অবদান কতখানি আলোচনা করো। 

উত্তর : বাংলায় জাতীয় চেতনার বিকাশে আনন্দমোহন বসুর অপরিসীম অবদান। রহিয়াছে। আনন্দমোহন বিলাত হইতে ফিরিয়া আসিবার পথে বোম্বাইয়ের ছাত্র আন্দোলনের

কর্মকাণ্ডের সবিশেষ জানিয়া আসিয়াছিলেন। অনুরূপভাবে বাংলার স্বদেশবাসীকে নবচেতনার উদ্বুদ্ধ করিবার সংকল্পে তিনি ১৮৭৬ সালে কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রতিষ্ঠা করিয়াছিলেন। আনন্দমোহন কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর সভাপতি ছিলেন এবং সম্পাদক ছিলেন নন্দকৃষ্ণ বসু। এই দুইজনেই নতুন রাষ্ট্রকর্মকে স্বদেশের মধ্যে গড়িয়া তুলিলেন। নন্দকৃষ্ণ এবং আনন্দমোহন দুইজনই কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উজ্জ্বল রত্ন ছিল। প্রবেশিকা হইতে আরও করিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষাতেই সর্বোচ্চ সম্মান লাভ করিয়াছিলেন। তৎকালে ছাত্রসমাজে আনন্দমোহনের অনন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠা ছিল। ফলে অচিরকালের মধ্যে আনন্দমোহন শিক্ষানবীশ বাঙালিদিগের রাষ্ট্রীয় জীবন গড়িয়া তুলিলেন। আনন্দমোহনের অনন্য সহযোগী ছিলেন সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়। ইনি রাষ্ট্রগুরু নামেই আজও খ্যাতিমান। 

প্রশ্ন ৫। সুরেন্দ্রনাথ ও আনন্দমোহন সম্পর্কে যা জান নিজের ভাষায় লেখো। 

উত্তর : উত্তরের জন্য ১নং এবং ২নং উত্তর দেখ 

টীকা লেখো : গোপালকৃষ্ণ গোখলে, লোকমান্য তিলক, গোবিন্দ রানাডে, হিন্দু স্কুল, তেগ বাহাদুর, গুরু গোবিন্দ। 

উত্তর : গোপালকৃষ্ণ গোখলে : গোপালকৃষ্ণ গোখলের জন্ম ১৮৬৬ সালে হইয়াছে। তিনি ছিলেন ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের বিখ্যাত মারাঠি নেতা। তিনি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসেরও নেতা ছিলেন। সডেন্টস অফ ইণ্ডিয়া সোসাইটি তিনি প্রতিষ্ঠা করিয়াছিলেন। তিনি বলিয়াছিলেন যে, বাঙালি আজ যা ভাবে, ভারত তা ভাবে আগামীকাল। ১৮৮৪ সালে বোম্বাই এলফিনস্টোন কলেজ থেকে তিনি বি.এ. পাশ করিয়াছিলেন। 

লোকমান্য তিলক :ও মহারাষ্ট্রের রত্নগিরিতে ১৮৫৬ সালে লোকমান্য তিলকের জন্ম হয়। তিনি ভারতের জাতীয়বাদী নেতা, সমাজ সংস্কারক ও আইনজীবী। ব্রিটিশ শাসক তাহাকে ভারতীয় অস্থিরতার পিতা বলিতেন। তিনি জনগণ দ্বারা গৃহীত নেতা ছিলেন। তাই তাহাকে লোকমান্য বলা হইত। 

গোবিন্দ রানাডে : মহারাষ্ট্রের নাসিকে ১৮৪২ সালে মহাদেব গোবিন্দ রানাডের জন্ম হয়। তিনি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের একজন স্রষ্টা ছিলেন। তিনি বোম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি ছিলেন। তিনি ইন্দুপ্রকাশ ছদ্মনামে লেখালেখি করিতেন। ১৮৬২ সালে বোম্বাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এ. পাশ করেন। 

হিন্দু স্কুল : হিন্দু স্কুল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা শহরের প্রথম আধুনিক স্কুল। ভারতের শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয়গুলির অন্যতম। কলকাতার কলেজ স্ট্রিট অঞ্চলে ইহা অবস্থিত। ১৮১৭ সালে এই স্কুল প্রতিষ্ঠিত হইয়াছিল। এই বিদ্যালয়কে প্রাচ্যের ইটন বলিয়া অভিহিত করা হইয়া থাকে। বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহা ও সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর এই স্কুলের ছাত্র ছিলেন। 

তেগ বাহাদুর : গুরু তেগ বাহাদুর শিখদের নাম শুরু ছিলেন। তিনি শিখধর্মের প্রথম গুরু নানক সাহেবের আদর্শের অনুসরণ করিয়াছেন। তাহার রচিত ১১৬ পদ গ্রন্থসাহেবে স্থান পাইয়াছে। ১৬২১ সালে তেগ বাহাদুর পাঞ্জাবের অমৃতসরে জন্ম গ্রহণ করিয়াছেন। মাত্র ৫৪ বছর বয়সে ১৬৭৫ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করিয়াছেন। 

গুরু গোবিন্দ : ১৬৬৭ সালে গুরু গোবিন্দের জন্ম হয়। তিনি শিখদের দশম গুরু ছিলেন। বর্তমান ভারতের পাটনা শহরে তাঁহার জন্ম হইয়াছিল। ১৬৭৫ সালে মাত্র ৯ বছর বয়সে তিনি পিতা তেগ বাহাদুরের স্থান গ্রহণ করিয়াছিলেন। তিনি ছিলেন শিখ জাতির নেতা, যোদ্ধা ও কবি। শিখ সমাজে গুরু গোবিন্দ ছিলেন আদর্শের প্রতীক।

 অতিরিক্ত প্রশ্নাবলী 

প্রশ্ন ১। কলিকাতার ছাত্রমণ্ডলীর সভাপতি এবং সহকারী সভাপতি কে ছিলেন? 

উত্তর ঃ আনন্দমোহন বসু এবং সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়। 

প্রশ্ন ২। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর একজন সদস্যের নাম বলো।

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর একজন সদস্যের নাম হইল নন্দকৃষ্ণ বসু।

প্রশ্ন ৩। ‘শব্দকল্পদ্রুম’ নামে সংস্কৃত ভাষায় বিশ্বকোষ কে রচনা করেছিলেন? 

উত্তর : রাধাকান্তদেব সংস্কৃত ভাষায় বিশ্বকোষ রচনা করিয়াছিলেন। 

প্রশ্ন ৪। সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুরের দেশাত্মবোধক গান ‘গাও ভারতের জয়’ কোন্ মেলায় গীত হয়েছিল ?

উত্তর হিন্দুমেলায় ১৮৬৭ সালে।

প্রশ্ন ৫। রাষ্ট্রগুরু সুরেন্দ্রনাথের জন্ম কোথায় হয়েছিল? তিনি কত সালে আই.সি. এস পৰীক্ষায় উত্তীর্ণ হন? [HSLC 2017 (Comp.)]

উত্তর : রাষ্ট্রগুরু সুরেন্দ্রনাথের জন্ম হইয়াছিল বারাকপুরের মণিরাম পল্লিতে। তিনি ১৮৭১ সালে আই. সি এস. পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। 

প্রশ্ন ৬। দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজের জন্ম কীভাবে হয়?

 উত্তর : বোম্বাইয়ের ছাত্রমণ্ডলীর আন্দোলন হইতে দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজের জন্ম হয়। 

প্রশ্ন ৭। Deccan Education Society এর প্রতিশব্দ কী? 

উত্তর : দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজ। 

প্রশ্ন ৮। আধুনিক রাষ্ট্রীয় জীবনের প্রতিষ্ঠাতা কে? 

উত্তর : দাক্ষিণাত্য শিক্ষা সমাজ। 

প্রশ্ন ৯। আধুনিক রাষ্ট্র জীবনের প্রতিষ্ঠাতা দুজনের নাম বল? 

উত্তর : লোকমান্য তিলক, গোপালকৃষ্ণ গোখলে। 

প্রশ্ন ১০। কলকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রতিষ্ঠা কবে হয়েছিল?

 উত্তর : ১৮৭৫-৭৬ সালে।

প্রশ্ন ১১। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর সহকারী সভাপতি কে ছিলেন?

উত্তর: সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়। 

প্রশ্ন ১২। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর প্রথম সম্পাদক কে ছিলেন? 

উত্তর : নন্দকৃষ্ণ বসু। 

প্রশ্ন ১৩। নন্দকৃষ্ণ বসু কোন বৃত্তি লাভ করেছিলেন? 

উত্তর : প্রেমচাদ রায়চাদ বৃত্তি। 

প্রশ্ন ১৪। বাঙালির রাষ্ট্রীয় জীবন গড়ে তুলেছিলেন কে? 

উত্তর : সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রশ্ন ১৫। সুরেন্দ্রনাথের বাগ্মী প্রতিভার প্রথম প্রকাশ কোথায় ঘটে? 

উত্তর : কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীর রঙ্গমঞ্চে।

 প্রশ্ন ১৬। এখানেই কলিকাতা Students Association এর সভা হইত।’— কোথায়

উত্তর : হিন্দু স্কুলের আর্ট গ্যালারিতে। 

প্রশ্ন ১৭। তাঁহার প্রথম বক্তৃতার কথা এখনও মনে আছে।’ উক্তিটি কার ? এখানের কার বক্তৃতার কথা বলা হয়েছে? তাঁর বক্তৃতার বিষয় কী ছিল? 

উত্তর : উক্তিটি লেখক বিপিন চন্দ্র পালের। এইখানে সুরেন্দ্রনাথের কথা বলা হইয়াছে। তাঁহার বক্তৃতার বিষয় ছিল – Rise of the Sikh power in India 

প্রশ্ন ১৮। আজ- কাহিনী বাংলার অন্তঃপুরেও প্রচারিত হইয়াছে।’ 

উত্তর : শিখের বলিদানের। 

প্রশ্ন ১৯। “শির দিয়া শীর নেহি দিয়া’ – কথাটি কে বলেছিলেন?

উত্তর : তেগ বাহাদুর। 

প্রশ্ন ২০। ইংরাজী শিক্ষার দুটি ফল কী?

উত্তর : ধর্মদ্রোহিতা এবং সমাজদ্রোহিতা।

প্রশ্ন ২১। ভারত মহাকাব্যের আদর্শ নায়ক কারা ?

 উত্তর : ভীষ্ম, দ্রোণ, কর্ণ, অর্জুন। 

প্রশ্ন ২২। ‘শিক্ষিত বাঙালির মনে এই ধারণাই জন্মিয়াছিল’ – এখানে কোন ধারণার তোলা। কথা বলা হয়েছে? 

উত্তর : ইংরাজ শক্তি অপরাজেয় এই ধারণা। 

Chapter
NO.
Contents
সাগর সঙ্গমে নবকুমার
বাংলার নবযুগ
বলাই
অরুণিমা সিন্হা : আত্মবিশ্বাস
ও সাহসের অন্য এক নাম
তোতা কাহিনী
কম্পিউটার কথা, ইন্টারনেট কথকতা
আদরিণী
প্রার্থনা
প্রতিনিধি
১০গ্রাম্যছবি
১১ বিজয়া দশমী
১২ আবার আসিব ফিরে
১৩দ্রুতপঠন : বৈচিত্র্যপূর্ণ অসম
তিওয়া
দেউরী জনগোষ্ঠী
অসমের নেপালী গোর্খা জনগোষ্ঠী
বড়ো জনগোষ্ঠী
মটক জনগোষ্ঠী
মরাণ জনগোষ্ঠী
মিচিং জনগোষ্ঠী
অসমের মণিপুরী জনগোষ্ঠী
রাভাসকল
সোনোয়াল কছারিসকল
হাজংসকল
অসমের নাথযোগীগণ
আদিবাসীসকল
১৪পিতা ও পুত্র
১৫অরণ্য প্রেমিক : লবটুলিয়ার কাহিনী
১৬ জীবন-সংগীত
১৭কাণ্ডারী হুশিয়ার

ভাবসম্প্রসারণ

রচনা

রচনা (Part-2)

প্রশ্ন ২৩। কোন ঐতিহাসিক শিখের শক্তির কথা বলেছিলেন?

উত্তর : ম্যালকম।

প্রশ্ন ২৪। সুরেন্দ্রনাথের দুটি অবদান কী লেখ। 

উত্তর : (ক) বাঙালির অন্তরে স্বাধীনতার প্রেরণা জাগাইয়া (খ) স্বাজাত্যাভিমান জাগাইয়া তোলা।

প্রশ্ন ২৫। ‘ভারত মহাকাব্যের আদর্শ যে আধুনিক ইতিহাসেও ফুটিয়া উঠিয়াছিল।’ সেটা কী ?

উত্তর : শিখের আত্মবলিদানের আদর্শ।

প্রশ্ন ২৬। ‘শৌর্য-বীৰ্য্য যে বারবার পরাভব স্বীকার করিয়াছে?’ এখানে কারা কাদের নিকট পরাভব স্বীকার করেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে?

 উত্তর : শিখের শৌর্য্য-বীর্য্যের নিকট ইংরাজের শৌর্য্য-বীর্য্য পরাভব স্বীকার করিয়াছে তাই বলা হইয়াছে।

প্রশ্ন ২৭। বিপিন চন্দ্র পালের জন্ম কোথায়, কত সালে হয়েছিল? 

উত্তর : ১৮৫৮ সালে শ্রীহট্টে। 

প্রশ্ন ২৮। বিপিন চন্দ্র পাল সম্পাদিত দুটি পত্রিকার নাম বল। 

উত্তর : নিউ ইণ্ডিয়া, বন্দে মাতরম।

প্রশ্ন ২৯। বঙ্গভঙ্গ করে হয়েছিল? 

উত্তর : ১৯০৫ খ্রীস্টাব্দে। 

প্রশ্ন ৩০। ‘A Nation in making’ কার লেখা? 

উত্তর : সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। 

প্রশ্ন ৩১। আনন্দমোহন বিলাত থেকে কী উপাধি পেয়েছিলেন? 

উত্তর : গণিত শাস্ত্রে র‍্যাংলার উপাধি।

প্রশ্ন ৩২। ১৮৯৮ সালে কংগ্রেসের মাদ্রাজ অধিবেশনের সভাপতি ছিলেন? 

উত্তর : আনন্দমোহন বসু। 

প্রশ্ন ৩৩। P.R.S এর সম্পূর্ণ নাম কী? 

উত্তর : Premchand Roychand Scholarship. 

প্রশ্ন ৩৪। কত সালে সংস্কৃত কলেজের প্রতিষ্ঠা হয়? 

উত্তর : ১৮০২ সালে।

প্রশ্ন ৩৫। বোম্বাই চিত্র গ্রন্থটি কার লেখা? 

উত্তর : সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুরের। 

প্রশ্ন ৩৬। কলিকাতা ছাত্রমণ্ডলীকে আশ্রয় করে যে দুজন মহান ব্যক্তি দেশের মধ্যে নিজেদের নতুন রাষ্ট্রকর্মকে গড়ে তোলেন, সেই ব্যক্তি দুজনের নাম কী ?  

উত্তর : সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং আনন্দমোহন বসু। 

Leave a Reply